Tuesday, May 21, 2024
HomeNational Newsভয়াবহ বন্যায় বিপর্যস্ত অসম, ৬ মে থেকে এপর্যন্ত ৫৪৫.৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টি !

ভয়াবহ বন্যায় বিপর্যস্ত অসম, ৬ মে থেকে এপর্যন্ত ৫৪৫.৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টি !

- Advertisement -

 

নিউজবাংলা ডেস্ক : ভয়াবহ বন্যায় ভাসছে আসাম। একটানা বৃষ্টির জেরে গোটা রাজ্যে ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা তৈরি হয়েছে। একটানা বৃষ্টির পরেও আবহাওয়া এখনও যথেষ্ট খারাপ থাকায় বন্যা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হওয়ার আশংকা রয়েছে। ইতিমধ্যে বন্য বিধ্বস্ত অসমের একের পর এক ভয়ঙ্কর ছবি সামনে আসছে। কোথাও কাদাজলের তোড়ে খেলনার মতো ভেসে যাচ্ছে ট্রেনের আস্ত বগি। কোথাও জলের প্রবল তোড়ে খড়কুটোর মতো লোহার ব্রিজ ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে নদী। চোখের পলক পড়ার আগেই ভেঙে পড়ে এই ব্রিজ৷ এই ঘটনা ডিমাহাসাও জেলার৷

আর ভাইরাল হওয়া ট্রেনটি দাঁড়িয়ে ছিল নিউ হাফলং স্টেশনে। সবমিলিয়ে ক্রমেই বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে অসমে। বন্যা ও ভূমিধসের ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১। এর মধ্যে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে ভূমিধসে। চারজনের মৃত্যু হয়েছে ডিমা হাসাওয়েতে, একজনের মৃত্যু হয়েছে লখিমপুরে। এছাড়াও নিখোঁজ দুই।

প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রায় দু’লক্ষ বাসিন্দা। সর্বশেষ প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে গত ৬ মে থেকে এখন পর্যন্ত ৫৪৫.৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। যার ফলে কাছার, বিশ্বনাথ, ধুবরি, ডিব্ৰুগড়, কার্বি আলং, লখিমপুর, নলবাড়ি, জোড়হাট সহ বন্যার কবলে পড়েছে ২০টি জেলা। রাজ্যের অন্য অংশের থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে ডিমাহাসাও।


করিমগঞ্জ ও হাইলাকান্দিতে একাধিক জায়গায় ধস নেমেছে। ব্যাপকভাবে প্রভাবিত হয়েছে জনজীবন। বন্যা কবলিত ৪ হাজার ৩৩০ জনকে ২২টি আশ্রয় শিবিরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিভিন্ন জেলার ১৫টি শিবির থেকে ত্রাণসামগ্রী বিলি করা হচ্ছে। বন্যায় ১২ হাজার ১৪৫ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে। নর্থইস্ট ফ্রন্টিয়ার রেলওয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন, শনিবার থেকে ১৮টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।

লামডিং অঞ্চলে বৃষ্টিতে আটকে পড়া দু’টি ট্রেন থেকে ২৮০০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। দুর্গতদের উদ্ধার করতে কাজ করছে বায়ুসেনা। প্রবল বৃষ্টিতে লামডিং-বদরপুর রেললাইনের বেশ কিছুটা অংশ ধুয়ে চলে গিয়েছে। ফলে ট্রেন চলাচল বন্ধ ওই রুটে। ক্ষতিগ্রস্ত রেলপথগুলি দ্রুত সারানোর কাজ চলছে। ১০টি ট্রেনের গতিপথ সংক্ষিপ্ত করে দেওয়া হয়েছে। ডিমাহাসাও জেলার সদর হাফলং সূত্রে জানা গিয়েছে, নিউ হাফলং স্টেশনের অর্ধেকের বেশি জলে ডুবে রয়েছে। জলের তোড়ে একটি খালি ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে গিয়েছে। সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যা দেখে বোঝা যাচ্ছে ঘটনার ভয়াবহতা।

যাত্রীদের হেলিকপ্টারে করে নিরাপদ স্থানে তুলে নিয়ে আসা হয়েছে। এখনও স্টেশনে আটকে রয়েছেন ৩৫ জন। বন্যা বিধ্বস্ত জেলার বহু রাস্তা ভেঙে গিয়েছে। ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে। পাঁচটি রাজ্য সড়ক সহ একটি জাতীয় সড়কের বেশ কিছুটা অংশ ভেঙে গিয়েছে। বেশ কিছু জায়গা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। মোবাইল নেটওয়ার্ক পেতে সমস্যা হচ্ছে। করিমগঞ্জে জেলায় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর শিবির জলমগ্ন। জাতীয় ও রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা দল উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে। উদ্ধারকার্য চালাচ্ছে বায়ুসেনা।

মোবাইলে নিউজ আপডেটপেতে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যোগ দিন, ক্লিক করুন Whatsapp

- Advertisement -
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments