Wednesday, April 17, 2024
HomeKolkata“মদ দোকানে করোনা নেই, স্কুল-লোকাল ট্রেনেই করোনা” স্কুল খোলার পক্ষে সওয়াল করে...

“মদ দোকানে করোনা নেই, স্কুল-লোকাল ট্রেনেই করোনা” স্কুল খোলার পক্ষে সওয়াল করে রাজ্য সরকারকে কটুক্তি শুভেন্দুর !

spot_imgspot_img
spot_imgspot_img

 

নন্দীগ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর : “শুধু কি স্কুল আর লোকাল ট্রেনেই করোনা রয়েছে? মদ দোকান, বার, রেষ্টুরেন্ট, পার্লার, সেলুন এই জায়গাগুলোতে করোনা নেই”। রাজ্যে বন্ধ হয়ে থাকা স্কুল আর লোকাল ট্রেন সাধারণ যাত্রীদের জন্য খুলে দেওয়ার দাবীতে এভাবেই সরব হলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। শুক্রবার নন্দীগ্রামের বিরুলিয়ায় জনসভায় এসে রাজ্য সরকারকে তুলোধোনা করেন তিনি। পাশাপাশি শুভেন্দুর দাবী, “কোভিড বিধি মেনে এখনই স্কুল খুলে দেওয়া হোক, যেমনটা কর্ণাটক বা গুজরাটে করা হয়েছে”।

শুভেন্দুর মতে, “সরকার বাহাদূরের কাছে আবেদন করব, গ্রামের গরীব ছাত্রছাত্রীদের কথা ভেবে ছাত্রছাত্রীদের ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করবেন এবং কোভিড বিধি মেনে দ্রুত স্কুল খুলবেন”। রাজ্যসরকারের উদ্দেশ্যে শুভেন্দুর কটুক্তি, “এই রাজ্যে মদ দোকান, পার্লার, বিউটি পার্লার, সেলুন খোলা। সেখানে কোভিড দেখা যায় না। কোভিড শুধু লোকাল ট্রেন আর স্কুলে থাকে। এভাবে গোটা প্রজন্মের খুব ক্ষতি করছে স্কুল বন্ধ রেখে। ছাত্রছাত্রীরা বলছে তাঁরা সব ভুলে গেছে। গরীব ছেলেমেয়েদের মুখের দিকে তাকিয়ে স্কুল খোলা হোক”।

এরই পাশাপাশি শুভেন্দুর খেদ, “এই রাজ্যে একটা প্রজন্ম চাকরীর আশায় বসে থেকে শেষ হয়ে গেছে। ২০১৪ সালে শেষবার শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা হয়েছিল। ২ লক্ষ পিটিটিআই পাশ করে বসে আছে। এবার আরও একটা প্রজন্মকে দু’বছর ধরে পড়াশোনা বন্ধ রেখে শেষ করে দেওয়া হচ্ছে। এখনি এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত না নিলে গোটা প্রজন্মের শিক্ষা ব্যবস্থা মুখ থুবড়ে পড়বে” বলে মন্তব্য করেন তিনি।

শুভেন্দু জানান, “নন্দীগ্রামের প্রত্যন্ত এলাকার স্কুল ছাত্রী আমাকে ফোন করে তাঁর দুঃখের কথা জানিয়েছে। দু’বছর ধরে তাঁরা শিক্ষালাভ থেকে বঞ্চিত হয়েছে। এই গরীব ছাত্রছাত্রীদের জন্য সরকার কেন নীরব” সেই প্রশ্নই তুলেছেন শুভেন্দু। তাঁর মতে, “গরীব বাড়ির ছাত্রছাত্রীরা প্রাইভেট টিউশান, ল্যাপটপ, ট্যাব কিনতে পারে না। তাই তাদের পড়াশোনা বন্ধ। দীর্ঘদিন ধরে একটি প্রজন্মকে পঙ্গু করে দিচ্ছে সরকার”।

ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ্যে শুভেন্দুর আক্ষেপ, “আমি বলেছি, আমি ক্ষমতায় নেই, আমি রাজ্যের বিরোধী দলনেতা। তবে আমি বিধানসভার গেটে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছি, এই রাজ্যে যেমন বছরের পর বছর বেকার যুবক যুবতীরা চাকরী পাচ্ছেন না ঠিক তেমনই প্রজনের পর প্রজন্মকে পঙ্গু করে দিচ্ছে স্কুল কলেজ বন্ধ রেখে”। শুভেন্দুর মতে, “কর্ণাটক, মহারাষ্ট্রের মতো রাজ্যে কোভিড বিধি মেনে স্কুল কলেজ খুলে দেওয়া হয়েছে। একদিন অন্তর ক্লাস হচ্ছে। একটা বেঞ্চে দু’জনকে বসার ব্যবস্থা করেছে। এভাবে আমাদের রাজ্যে কেন স্কুল খোলার উদ্যোগ নেওয়া হবে না?”।

 

spot_imgspot_img
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments