Saturday, July 20, 2024
Homeদক্ষিণবঙ্গElection : ‘নন্দকুমার মডেলে না’, রামের সঙ্গে আপোষ করলেই বহিষ্কার, জানিয়ে দিল...

Election : ‘নন্দকুমার মডেলে না’, রামের সঙ্গে আপোষ করলেই বহিষ্কার, জানিয়ে দিল বাম নেতৃত্ব !

spot_img
spot_img
- Advertisement -

তমলুক : সমবায় বা পঞ্চায়েত নির্বাচনে তথাকথিত ‘নন্দকুমার মডেল’ অর্থাৎ বিজেপির সঙ্গে জোট বেঁধে লড়াই করার জল্পনায় জল ঢেলে দিল পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সিপিএম নেতৃত্ব। সিপিএমের জেলা সম্পাদক নিরঞ্জন সিহি সাফ জানিয়ে দিলেন, বিজেপির বিরুদ্ধে গোটা দেশ জুড়ে লড়াই চালাচ্ছে বামেরা। তাই তাঁদের সঙ্গে কোনও প্রকার জোট বরদাস্ত নয়। কেউ এমন জোট করতে চাইলে তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গতঃ নভেম্বরের গোড়ার দিকে নন্দকুমারের বহরমপুর সমবায়ের নির্বাচনে (Election) ‘পশ্চিমবঙ্গ সমবায় বাঁচাও মঞ্চ’র নামে বিজেপির সঙ্গে জোট গড়ে লড়াই করেছিল বামেরা। সেই নির্বাচনে সবকটি আসনেই শাসক দলকে ধরাশায়ী করে একক ক্ষমতায় সমবায়ের দখল নেয় বাম বিজেপি জোট। এরপর থেকেই রাজ্য জুড়ে চর্চার কেন্দ্রে চলে আসে ‘নন্দকুমার মডেল’।

সম্প্রতি মহিষাদলের কেশবপুর জালপাই রাধাকৃষ্ণ সমবায়েও একই কায়দায় বাম বিজেপি জোট গড়ে। যদিও সেখানে বিশেষ সুবিধা করতে পারেনি জোট প্রার্থীরা। এবার আগামী ৪ ডিসেম্বর তমলুকের খারুই গঠরা সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতির নির্বাচনে প্রকাশ্যে জোট গড়েছে বাম ও বিজেপি। রবিবার স্থানীয় সিপিএম নেতৃত্বরা বিজেপির হাত ধরে একসঙ্গে মিছিলও করেছেন বলে স্থানীয় সূত্রের খবর।

বৃহস্পতিবার খেজুরিতে হার্মাদ মুক্ত দিবসের মঞ্চে দাড়িয়ে শুভেন্দুর বাম স্তুতি আসন্ন পঞ্চায়েত ভোটে রাম বাম জোটের সম্ভাবনাকে উস্কে দিয়েছিল। এরপরেই মাঠে নামেন জেলার বাম নেতৃত্বরা।

নিরঞ্জন সিহি পরিষ্কার করে দিয়েছেন, সর্বভারতীয় স্তর থেকে জেলা, শাখা সর্বত্র পার্টির স্ট্যান্ড বিজেপি বিরোধীতা। আমাদের পার্টি বাম প্রগতিশীল ঐক্যকে প্রাধান্য দেওয়া। সেখানে যারা বিজেপির সঙ্গে দাঁড়িয়েছে এবং সেখানে আমাদের যারা প্রকাশ্যে বা গোপনে আঁতাত করেছে তাঁদের সরাসরি পার্টি থেকে বহিষ্কার করা হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তাঁর সাফ কথা, “সামনের পঞ্চায়েত নির্বাচনে আমরা সব আসনেই দলীয় প্রার্থী দেব। আমাদের বুথ থেকে জেলা নির্বাচনী কমিটি গঠন হয়ে গেছে। যেখানে ইতিমধ্যে ৭৫% প্রার্থী স্থির হয়ে গিয়েছে, বাকীদের খোঁজা হচ্ছে। আমাদের দলের কেউ যদি নির্দল হিসেবে দাঁড়ায় তাহলে ধরে নিতে হবে ‘ডাল মে কুছ কালা হ্যায়’। আমরা তাঁকে দলের গঠনতন্ত্রের ১৯১৩ ধারা মতে বহিষ্কার করব”।

- Advertisement -

নিয়মিত খবরে থাকতে আমাদের সোশ্যাল সাইটে যুক্ত হয়ে যান

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments