Monday, June 24, 2024
Homeদক্ষিণবঙ্গএগরা মহকুমা হাসপাতালে প্রসূতি বিভাগে অক্সিজেনের পাইন লাইনে আচমকাই আগুন, আতংকে রোগী...

এগরা মহকুমা হাসপাতালে প্রসূতি বিভাগে অক্সিজেনের পাইন লাইনে আচমকাই আগুন, আতংকে রোগী ও পরিজনদের হুড়োহুড়ি !

spot_img
spot_img
- Advertisement -

 

নন্দন বেরা, এগরা : বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা। হঠাৎই হুড়োহুড়ি পড়ে যায় এগরা মহকুমা হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে। কারণ, আচমকা আগুন ধরে যায় একটি বেডের কাছে। সেই সময় প্রসূতি বিভাগের বেডগুলিতে ভরপুর ছিল সদ্যজাত বাচ্চা সহ প্রসূতি মহিলারা। আগুনের আতংকে কোনও ক্রমে তাঁরা ছুটে বাইরে বেরিয়ে যান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে দমকলের একটি ইঞ্জিন। যদিও তার আগেই হাসপাতাল কর্মী ও রোগীর আত্মীয়দের চেষ্টায় আগুন নিভিয়ে ফেলা সম্ভব হয়েছে।

দমকল সূত্রে জানা গেছে, সেন্ট্রালাইজ অক্সিজেনের পাইপ লাইনের কাছেই আগুন লেগেছিল। তবে ঠিক কোন কারনে আগুন লাগে তা এখনও পরিষ্কার নয়। যদিও প্রসূতীদের পরিজনের একাংশের দাবী, ওই জায়গায় মোবাইল চার্জ করার সময়ই আগুন ধরে যায়। আগুনে পুড়ে যায় বেডের পাশে রাখা এক প্রসূতীর পোশাকেও। তবে সময় মতো ব্যবস্থা নেওয়ায় আগুন ভয়াবহ আকার নেয়নি বলেই প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ বেলা প্রায় সাড়ে ১০টা নাগাদ হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের একটি বেডের কাছে আচমকাই সেন্ট্রালাইজ অক্সিজেনের পাইপ ফেটে আগুন ধরে যায়। বেডে থাকা রোগীর কাপড়চোপড় পুড়ে যায়। সেই সময় ওই বেডে থাকা রোগীকে দ্রুত সরিয়ে নেয় পরিজনেরা। সেই সঙ্গে আগুন যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেই জন্য ওই অক্সিজেনের পাইপের সাপ্লাই বন্ধ করে দেওয়া হয়। অন্যান্য রোগীদেরও সরিয়ে দেওয়া হয়।

রোগীর আত্মীয় চাঁপারানী দাস জানান, “আমার মেয়ে ও সদ্যজাত নাতিকে নিয়ে একটি বেডে বসেছিলাম। আচমকা একটি বেডে আগুন ধরে যাওয়ার খবর শুনে হুড়োহুড়ি করে বেরতে গিয়ে কিছুটা চোট পেয়েছি। তবে মেয়ে ও নাতি ভালো আছে। কিভাবে আগুন ধরে গেল বুঝতে পারছি না”। আর এক আত্মীয় গৌরি পয়ড়্যা জানান, “আচমকাই পাশের বেডে আগুন দেখতে পেয়েই পড়িমরি ছুটে বেরিয়ে যাই। রোগীদের মধ্যে হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। তবে কারও কোনও ক্ষতি হয়নি”।

দমকলের প্রাথমিক অনুমান, অক্সিজেনের পাইপে আগুন ধরে যাওয়ার জেরেই এমন বিপত্তি। কিভাবে আগুন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনাস্থলের ছবি নিয়ে গিয়েছেন দমকলের আধিকারীকরা। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, আগুনের খবর পেয়েই তড়িঘড়ি অক্সিজেনের সাপ্লাই বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিভাবে আগুন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।  

মোবাইলে নিউজ আপডেটপেতে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যোগ দিন, ক্লিক করুন Whatsapp

- Advertisement -

নিয়মিত খবরে থাকতে আমাদের সোশ্যাল সাইটে যুক্ত হয়ে যান

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments